মুসলিম বিবাহ রেজিস্ট্রেশন না করার শাস্তি

| প্রকাশিত হয়েছেঃ বুধবার, এপ্রিল ০৪, ২০১৮ | ভয়েস বিভাগঃ
বিবাহ এমন একটি সামাজিক বন্ধন বা বৈধ চুক্তি যার মাধ্যমে দু'জন মানুষের মধ্যে একটি সম্পর্ক স্থাপিত হয়।বিবাহকে একটি সিভিল কন্ট্রাক্ট বা দেওয়ানী চুক্তি বলা হয়। বিভিন্ন দেশে সংস্কৃতিভেদে বিবাহের সংজ্ঞার তারতম্য থাকলেও সাধারণ ভাবে বিবাহ এমন একটি প্রতিষ্ঠান যার মাধ্যমে দু'জন মানুষের মধ্যে ঘনিষ্ঠ ও যৌন সম্পর্ক সামাজিক স্বীকৃতি লাভ করে।

বাংলাদেশে অনেক ধর্মাবল্বী লোকের বসবাস রয়েছে। তাদের বিবাহের রীতি নীতিও আলাদা। কিন্তু অন্যান্য ধর্মাবল্বীদের মধ্যকার সম্পাদিত বিবাহ নিবন্ধনের কোন বাধ্যবাধকতা না থাকলেও মুসলিম বিবাহ নিবন্ধন মুসলমানদের জন্য বাধ্যতামূলক। ১৯৭৪ সনের মুসলিম বিবাহ ও তালাক (নিবন্ধন) আইন এর ৫ ধারায় বিবাহ রেজিষ্ট্রেশনের বিষয়ে বলা আছে।

৫ ধারার ১ উপধারায় বলা আছে যে, যখন কোন নিকাহ রেজিষ্ট্রার স্বয়ং বিবাহ কার্য্য সম্পাদন করেন,  তিনি তাৎক্ষণিকভাবে উক্ত বিয়ে রেজিষ্ট্রি করবেন।


২ উপধারায় বলা হয়েছে যে, যদি কোন বিয়ে নিকাহ রেজিষ্ট্রার ব্যতীত অন্য কোন ব্যক্তি কর্তৃক সম্পাদিত হয়, তাহলে উক্ত বিয়ের বর বিয়ে সম্পাদনের ৩০ দিনের মধ্যে বিয়ে সম্পাদনের বিষয়টি সংশ্লিষ্ট নিকাহ রেজিষ্ট্রারকে অবহিত করবেন।

৩ উপধারা মতে, যদি কোন বিবাহ সম্পাদন সম্পর্কে ২ উপধারার বিধান অনুযায়ী নিকাহ রেজিস্ট্রারকে অবহিত করা হয়, তাহলে উক্ত নিকাহ রেজিষ্ট্রার তাৎক্ষণিকভাবে উক্ত বিবাহ  রেজিষ্ট্রি করবেন।

উপরোক্ত তিনটি উপধারায় বর বা নিকাহ রেজিষ্ট্রারের দায়িত্ব সম্পর্কে বলা হয়েছে। উক্ত দায়িত্ব পালন না করলে তার শাস্তি কি হবে তা বলে দেওয়া হয়েছে উপধারা ৪ এ।উপধারা ৪ এ বলা হয়েছে যে, যে ব্যক্তি এই ধারার অর্থাৎ ৫ ধারার বিধানাবলী ভঙ্গ করবেন সেই ব্যক্তি একটি অপরাধ করেছেন বলে ধরা হবে এবং তিনি এরূপ ভঙ্গের জন্য সর্বোচ্চ দুই বছর বিনাশ্রম কারাদন্ড অথবা তিন হাজার টাকা অর্থদন্ড অথবা উভয় দন্ডে দন্ডনীয় হবেন।

অর্থ্যাৎ কাজী বা বর যদি ৫ ধারায় তাদের উপর যে দায়িত্ব অর্পন করা হয়েছে সেই দায়িত্ব পালন না করেন তাহলে তিনি শাস্তিযোগ্য অপরাধ করেছেন বলে ধরা হবে। উল্লেখ্য ধারা পর্যালোচনা করলে দেখা যায় যে, মুসলিম বিবাহ নিবন্ধন করা বাধ্যতামূলক এবং বিবাহ নিবন্ধন না করা শাস্তিযোগ্য অপরাধ। এখানে উল্লেখ্য যে, যদি কোন বিবাহ নিবন্ধন করা না হয় তাহলেও বিয়ে অবৈধ হবে না। বিয়ে নিবন্ধন না করলে শাস্তি পেতে হবে। এতে বিয়ের কোন ক্ষতি হবে না।
আপনি কি আমাদের ব্লগে লিখতে আগ্রহী? তাহলে এখানে নিবন্ধন করুন।
আপনার কি কিছু বলার ছিল? তাহলে লিখুন নিচে মন্তব্যের ঘরে।

পোস্টটি শেয়ার করুন

Previous
Next Post »